Entertainment

ক্লাস ৭-এ আত্মীয়ার হাতে যৌন হেনস্থা, ভুলতে পারেননি পীযূষ মিশ্র

আজ থেকে প্রায় ৫০ বছর আগের একটি দুঃস্বপ্নের মতো ঘটে যাওয়া ঘটনাকে ফের মনে করলেন অভিনেতা পীযূষ মিশ্র। জানালেন তাঁর এক দূরসম্পর্কের আত্মীয়ার দ্বারা তিনি কীভাবে নির্যাতনের শিকার হয়েছিলেন। এই গোটা ঘটনায় তিনি এতটাই ভয় পেয়ে যান যে সেটার প্রভাব তাঁর আগামী জীবনে পড়ে। এমনটাই তিনি তাঁর আত্মজীবনী তুমাহারি অওকাত হ্যায় পীযূষ মিশ্রতে লিখেছেন।

তিনি এই বইতে কেবল সেই আত্মীয়ার নাম বদলে দেন। কিন্তু তাঁর সঙ্গে যে ঘটনাটি ঘটেছিল সেটার হুবহু বর্ণনা দেন তিনি এখানে। তাঁর এই আত্মজীবনীটি রাজকমল প্রকাশনার তরফে প্রকাশ করা হয়েছে। এই গোটা ঘটনার বিষয়ে পিটিআইকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে পীযূষ জানান, ‘আমাকে ভীষণ আতঙ্কিত করেছিল ঘটনাটা। আমি হতবাক হয়ে গিয়েছিলাম যে এটা আমার সঙ্গে কী হল?’

তিনি আরও বলেন ‘যৌন সম্পর্ক একটি স্বাস্থ্যকর জিনিস, কিন্তু সেটার প্রথম অভিজ্ঞতা ভালো হওয়াও প্রয়োজন। নইলে সেটার ছাপ বা আঘাত গোটা জীবনের জন্য থেকে যায়। আজীবন সেটা আপনাকে যন্ত্রণা দিতে থাকে। আমি যে যৌন হেনস্থার শিকার হয়েছিলাম সেটা আমার জীবনকে অনেক জটিল করে তুলেছিল। অনেক সঙ্গীর সাহায্যে বহু বছর পর আমি সেই ট্রমা থেকে বেরিয়ে আসতে পারি।’

তাঁর এই বইতে উঠে এসেছে তাঁর গোয়ালিয়রের সরু গলি থেকে দিল্লির মান্ডি হাউজ এবং শেষ পর্যন্ত মুম্বইয়ের সফরের কাহিনি। তিনি তাঁর বই প্রসঙ্গে বলেন, ‘আমি কিছু মানুষের পরিচয় গোপন রাখতে চেয়েছি, এঁদের মধ্যে কিছু মহিলা আছেন, কিছু পুরুষ আছেন। এঁরা সকলেই এখন বিনোদন জগতে সুপ্রতিষ্ঠিত। আমি কারও উপর বদলা নিতে চাই না। কাউকে কষ্ট দিতেও চাই না।’

তাঁর কিছু উল্লেখযোগ্য কাজের মধ্যে আছে বিশাল ভরদ্বাজের মকবুল, অনুরাগ কাশ্যপের গুলাল, গ্যাংস অব ওয়াসিপুর, ইত্যাদি। তিনি কেবল একজন অভিনেতা নন, তিনি একাধারে অভিনেতা, গান লেখক, গায়ক, চিত্রনাট্য লেখক। একই অঙ্গে যেন অনেক রূপ। তবে তিনি তাঁর বইতে জানিয়েছেন যে তাঁর বাবা চাননি তিনি এই দুনিয়ায় আসুন। তিনি চেয়েছিলেন যাতে পীযূষ চিকিৎসক হতে পারে। তিনি মেডিক্যাল সায়েন্স নিয়ে পড়াশোনা করেন।

এই খবর ইউনিকাস প্রতিস্থাপন করেনি তাই এর কোনো কৃতিত্ব অথবা দ্বায়িত্ব ইউনিকাস এর নয়। দয়া করে এর উৎস টি খুঁটিয়ে দেখুন। এই পোস্ট টি আপত্তিকর হলে, তা অবিলম্বে মুছে ফেলতে আমাদের সত্বর যোগাযোগ করুন।